অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

দীর্ঘদিন যাবৎ ৩ কোম্পানির উৎপাদন বন্ধ

মোঃ জহিরুল ইসলাম খান: শেয়ারবাজারে সর্বশেষ ৪ বছরে তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে ৩টির উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে।

এছাড়া কোম্পানিগুলো থেকে শেয়ারহোল্ডাররা ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অথচ ব্যবসা সম্প্রসারণের লক্ষে কোম্পানিগুলো শেয়ার বাজারের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে।যার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এই তিন কোম্পানির শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীরা।

উৎপাদন বন্ধ হওয়া কোম্পানিগুলো হল- এমারেল্ড অয়েল, সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল ও তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডাইং।

এমারেল্ড অয়েল : ২০১৪ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির বেসিক ব্যাংক ঋণ কেলেঙ্কারী ও অদক্ষ ব্যবস্থাপনার কারনে দীর্ঘদিন ধরে উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। জুন ক্লোজিং এ কোম্পানিটি এরইমধ্যে সর্বনিম্ন ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে পতিত হয়েছে।

আর ২০১৬-১৭ অর্থবছরের ৯ মাসের বা ৩য় প্রান্তিকের পরে আর্থিক হিসাব প্রকাশ বন্ধ রয়েছে। যদিও এরইমধ্যে আরও ৪টি প্রান্তিকের আর্থিক হিসাব প্রকাশের সময় পার হয়ে গেছে।

কোম্পানিটির শেয়ারবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করে।

সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল : এ কোম্পানিটিরও অবস্থাও এমারেল্ড অয়েলের ন্যায়। পারিবারিক কলহে এ কোম্পানিটির উৎপাদন বন্ধ রয়েছে।

সময় পার হয়ে গেলেও বিগত ৪টি প্রান্তিকের আর্থিক হিসাব প্রকাশ করেনি। এ কোম্পানিটি ২০১৫ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে ৪৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করে।

তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডাইং : এ কোম্পানিটির আর্থিক হিসাব প্রকাশ বন্ধ রয়েছে। ২০১৭ সালের মার্চের পরে কোন আর্থিক হিসাব প্রকাশ করা হয়নি। পরিচালকদের অন্তকলহে বন্ধ রয়েছে উৎপাদন। অবস্থান করছে সর্বনিম্ন ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে। কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে ৩৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করে।

সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইলের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) জামাল পাটোয়ারি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আর্থিক হিসাব প্রকাশ না করার কারন আমি নিজেও জানি না। এ বিষয়ে উর্ধ্বতন ম্যানেজম্যান্টই ভালো বলতে পারবেন।

তবে এমারেল্ড অয়েলের পরিচালক সুজন কুমার বশাক ও তুং হাই নিটিংয়ের সচিব সুমনের ব্যক্তিগত নাম্বারে যোগাযোগ করা হলেও কেউ ফোন রিসিভ করেননি।

১৬ মে ২০১৮/সত্যের সৈনিক/সুলতান মাহমুদ

Leave A Reply

Your email address will not be published.