অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

মালিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ১০০

সত্যের সৈনিক অনলাইন: আফ্রিকার মালির সাংগা শহরের নিকটবর্তী সোবালে কোও গ্রামে ডোগন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ওপর সন্ত্রাসী হামলায় অন্তত ১০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। হামলার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন গ্রামের কেবলমাত্র ৫০ জন মানুষ। হামলার পর এখনও নিখোঁজ রয়েছেন প্রায় ১৯ জন। সোমবার (১০ জুন) এ হামলার ঘটনা ঘটে।

সহিংসতা যেন আর না ছড়ায় সেজন্য সে এলাকায় বিমান সহায়তা পাঠিয়েছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনী।

স্থানীয় একজন কর্মকর্তার বরাতে বিবিসি সূত্রে জানা যায়, সোবালে কাও গ্রামে প্রায় ৩শ’র মত বাসিন্দার বসবাস। ঘটনার পর মৃতদেহগুলো আগুনে পুড়ে যাওয়া অবস্থায় পাওয়া যায়। আরও মরদেহ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সম্প্রতি মালিতে বেশ কয়েকটি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর মাঝে কিছু হয়েছে গোষ্ঠীগত বিরোধের কারণে আর কিছু হামলা ছিল জিহাদি গ্রুপের। ডোগন শিকারি এবং সেমি নোমাডিক ফুলানি হার্ডার মধ্যে সংঘর্ষ সেখানে প্রায়ই হয়।

দেশটির সরকার জানিয়েছে, হামলাকারীরা সন্দেহভাজন সন্ত্রাসী। গ্রামে বেশ কিছু মানুষ এ ঘটনার নির্মমতার শিকার হয়েছেন। এতে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ১৯ জন।

সৌভাগ্যক্রমে এই নির্মমতার হাত থেকে বেঁচে যাওয়া এক ব্যক্তি সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানান, ভারী অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ৫০ জন ব্যক্তি মোটরবাইক এবং পিকআপে করে এসে পুরো গ্রাম ঘিরে ফেলে। তাদের হামলার হাত থেকে নারী, শিশু, বৃদ্ধ কেউ রেহাই পায়নি। তারা যাকেই পেয়েছে হত্যা করেছে।

এ হামলার দায় এখন পর্যন্ত কেউ স্বীকার করেনি।

এ হামলার আগে চলতি বছরের মার্চ মাসেও এই অঞ্চলে সশস্ত্র বাহিনীর হামলায় ফুলানি গ্রামে প্রায় ১৩০ জন নিহত হন।

২০১২ সালে উত্তর মালিতে ইসলামপন্থী জঙ্গি বিদ্রোহের পর ডগন ও ফুলানিদের মধ্যে সংঘাত ও হামলার ঘটনা বেড়েই চলছে।

১১ জুন ২০১৯ / সত্যের সৈনিক / এমএসআইএস

Leave A Reply

Your email address will not be published.