অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

তীরে গিয়ে তরী ডুবলো পাঞ্জাবের !

সত্যের সৈনিক অনলাইন: বুধবার মুম্বাইয়ের ঘরের মাঠ ওয়াংখেড়ে টুর্নামেন্টে টিকে থাকার লড়াইয়ে জেপি ডুমিনির জায়গায় ডাক পান কাইরন পোলার্ড।

আর সুযোগটা দারুণভাবেই কাজে লাগান তিনি। দ্রুত ৪ উইকেট হারিয়ে মুম্বাই যখন ব্যাকফুটে তখন ক্রুনাল পান্ডিয়াকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন এই ক্যারিবীয়। ২৩ বলে ৩ ছক্কা আর ৫ বাউন্ডারিতে ঠিক ৫০ রানেই থামেন তিনি। মুম্বাইয়ের ইনিংস শেষ পর্যন্ত ৮ উইকেট হারিয়ে ১৮৬ রানে থামে।

১৮৭ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ক্রিস গেইলের উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে পাঞ্জাব। কিন্তু দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কেএল রাহুল অ্যারন ফিঞ্চকে নিয়ে ম্যাচের চাকা সচল রাখেন।

উইকেটে থাকা যুবরাজ সিং দলের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দায়িত্বশীল ব্যাটিং করতে পারেননি। ম্যাকলেঞ্জের বলে মাত্র ১ রান করে ফেরেন যুবি। এরপর অক্ষর প্যাটেলের পক্ষে সম্ভব হয়নি খালি হাতে পাহাড় ঠেলা।

এই ম্যাচের জয়ের নায়ক জসপ্রীত বুমরাহ। তার কারণেই অসাধারণ এক জয় পেয়েছে মুম্বাই। শেষ ৩০ বলে পাঞ্জাবের প্রয়োজন ছিল ৬০ রান। ১৬তম ওভারে মারকান্ডিকে দুই ছয় হাঁকিয়ে ১৮ রান আদায় করে নেন রাহুল।

১৭তম ওভারে অসাধারণ বোলিং করেন বুমরাহ, এই ওভারে মাত্র ৪ রান দিয়ে পাঞ্জার সেট ব্যাটসম্যান অ্যারণ ফিঞ্চ এবং মার্কাস স্টইনিসির উইকেট তুলে নেন বুমরাহ।

জয়ের জন্য শেষ ১৮ বলে পাঞ্জাবের প্রয়োজন ৩৮ রান। ১৮তম ওভারে বেন কাটিংকে পরপর তিনটি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জয়ের পথ সহজ করেন রাহুল।

শেষ ১২ বলে পাঞ্জাবের প্রয়োজন ছিল ২৩ রান। আগের ওভারগুলোতে ১৮ ও ১৫ রান করে তুলে নেয়া পাঞ্জাবের জন্য শেষ দুই ওভারে বলতে গেলে ছোট লক্ষই ছিল। কিন্তু স্নায়ু চাপ সামলিয়ে ব্যাটিং করতে না পারায় তীরে গিয়ে তরী ডুবে পাঞ্জাবের।

দলের হয়ে ৬০ বলে ১০ চার ও তিন ছক্কায় ৯৪ রান করে ফিরেন রাহুল। এছাড়া ৩৫ বলে ৪৬ রান করেন অ্যারন ফিঞ্চ।

মুম্বাইয়ে হয়ে ৪ ওভারে ১৫ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন বুমরা!

পাঞ্জাবকে ৩ রানে হারিয়ে শেষ চারের আশা টিকিয়ে রেখেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

১৭ মে ২০১৮/সত্যের সৈনিক/ মো. শফিকুল ইসলাম সোহেল

Leave A Reply

Your email address will not be published.