অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

পাহার সমান রান তবুও জয়ের বিশ্বাস ছিল টাইগারদের

সত্যের সৈনিক অনলাইন: নিজেদের মাঠ, নিজেদের দর্শক, আর শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপ। বোলিংয়ে বেশি সুবিধা থাকার কথা যে উইকেটে, সেখানেও টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৩৮৬ রান জড়ো করা তো ইংলিশদেরই মানায়! টাইগারদের এত বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়ে ইংল্যান্ড কার্যত ম্যাচ জিতে নিয়েছিল প্রথম ইনিংসেই। পাহার সমান রান তবুও জয়ের বিশ্বাস ছিল টাইগারদের।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সহ-অধিনায়ক ও শতক হাঁকানো সাকিব আল হাসান জানান, বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমেও বাংলাদেশ জয়ের বিশ্বাস রেখেছিল। আর এ কারণে নজর ছিল প্রথম ৩০ ওভারে। টি-টোয়েন্টির ছন্দে খেলে শেষদিকে আরও দ্রুত রান তোলা ছিল লক্ষ্য। যদিও শেষপর্যন্ত উদ্দেশ্য পূরণ না হওয়ায় জুটেছে ১০৬ রানের পরাজয়।

সাকিব বলেন, ‘আমরা দেখতে চেয়েছিলাম ৩০ ওভারে আমরা কোন অবস্থানে থাকি। ৩০ ওভারের পর আমাদের ২০০ রানের মত প্রয়োজন ছিল। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অনেক ভালো খেললে আপনি এই রান করতে পারেন। আমরা কখনোই এমন ভাবছিলাম না যে রানটা তাড়া করা যাবে না। তবে এটা কঠিন ছিল, শুরু থেকেই। একটা সময় আমাদের মনে হচ্ছিল জিততে না পারলেও আমরা খুব কাছে যেতে পারব। আমাদের এই বিশ্বাসই ছিল।’

মুশফিকুর রহিমের সাথে দারুণ জুটি গড়ে একটা পর্যায়ে দিচ্ছিলেন জয়েরই ইঙ্গিত। তবে দুজনই সাজঘরে ফিরলে ফিকে হয়ে যায় জয়ের স্বপ্ন।

সাকিব বলেন, ‘আমাদের পার্টনারশিপ হচ্ছিল ভালো। একসাথে দুইটা উইকেট পড়ার পরই আমরা পেছনে চলে গেছি। ৩২০-৩৩০ রান হলে আমরা স্বাচ্ছন্দে জিততে পারতাম। একটা সময় ২ উইকেট হারিয়ে ৩০ ওভারে ১৮০-র মত করেছিলাম। ৩৮০-র মত রান সবসময় আমাদের বিপক্ষেই যাবে।’

ম্যাচ হেরে গেলেও সাকিব শনিবার হাঁকিয়েছেন বিশ্বকাপে নিজের প্রথম শতক। এর আগে ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে একই মাঠে হাঁকিয়েছিলেন সর্বশেষ শতক।

অনুভূতি জানিয়ে সাকিব বলেন, ‘প্রথম বিশ্বকাপ শতক, ভালো লাগা স্বাভাবিক। দল জিতলে ভালো লাগত। দলের পরিকল্পনা তো থাকেই। কিন্তু মারমুখো ব্যাটিং এলে অনেক সময় কোনো পরিকল্পনাই কাজে আসে না। মাঠ খুব ছোট। আমাদের বোলারদের বল ব্যাটসম্যানরা সোজাই বেশি মারবে। কিছু নেতিবাচক দিকও আমাদের ছিল। আসলে কারণ দেখানো যেতেই পারে। চেষ্টা করতে হবে পরের ম্যাচে মাঠের যে অবস্থাই থাক যে কন্ডিশনই থাক আমরা যেন মানিয়ে নিতে পারি।’

৯ জুন ২০১৯ / সত্যের সৈনিক / এমএসআইএস

Leave A Reply

Your email address will not be published.