অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

অস্বাভাবিক কিছু দেখলে জানানোর কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী

সত্যের সৈনিক অনলাইন: জাতীয় সংসদ ভবন থেকে- শ্রীলঙ্কায় গির্জা ও হোটেলে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় নিহতদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

এসময় দেশে কোথাও কোনো অস্বাভাবিক কিছু দেখলো সঙ্গে সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাকে জানাতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার,২৪ এপ্রিল, একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশনের শুরুতে নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে তার লিখিত প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে শ্রীলঙ্কার বোমা হামলার ঘটনা নিয়ে শোক প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কায় সেদিনের ঘটনার পর মানুষের মৃত্যুর খবর আসতে থাকে। সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী শেখ ফজলুল করিম সেলিমের কন্যার ছেলে ৮ বছরের জায়ান চৌধুরী সেও মৃত্যুবরণ করেছে। শেখ সেলিমের মেয়ে সোনিয়ার জামাই সেখানে আহত অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। আমি জায়ানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেখানে শুধু জায়ান চৌধুরীই না, প্রায় ৪০ জনের কাছাকাছি শিশুসহ সাড়ে ৩শ মানুষ মারা গেছে। এ ধরনের সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, বোমা হামলার নিন্দা জানাবার ভাষা নেই। আমি তীব্র নিন্দা জানাবো। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে তারা এর মধ্যদিয়ে কি অর্জন করছে? জানি না। এই ছোট শিশু নিষ্পাপ, কোনো অপরাধ তো সে করেনি। এর কিছুদিন আগে নিউজিল্যান্ডে মসজিদে গুলি চালিয়ে অনেকগুলি মানুষকে হত্যা করা হলো, সেখানেও নারী ছিল, শিশু ছিল আমাদের ক্রিকেট টিমও ছিল। খুব অল্পের জন্য তারা বেঁচে গেছে। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ মানুষের কল্যাণ বয়ে আনতে পারেনি।

তিনি বলেন, মানবসৃষ্ট সন্ত্রাস, ফেনীর নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে মারলো। মেয়েটা একটা অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিল। এ ধরনের অমানবিক ঘটনাগুলি ঘটে, সত্যি মানবজাতির জন্য এটা অকল্যাণকর।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে এরকম বোমা হামলা, জঙ্গি হামলা কঠোর হস্তে দমন করেছি। আমি দেশবাসীকে বলবো সর্তক থেকে যদি কোথাও কোনো অস্বাভাবিক কিছু দেখতে পায় তারা যেন সঙ্গে সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাকে জানায়। আমরা চাই না পৃথিবীতে এ ধরণের ঘটনা কোথাও ঘটুক। যারা সন্ত্রাসী, জঙ্গিবাদ করে তাদের কোনো ধর্ম নেই, দেশ-কাল-পাত্র নেই। জঙ্গি জঙ্গিই, সন্ত্রাসী সন্ত্রাসীই। ইসলাম পবিত্র ধর্ম। সেই ধর্মটাকেই সব মানবজাতির কাছে হেয় প্রতিপন্ন করে দিচ্ছে। ইসলাম শান্তির ধর্ম, সব ধর্মেই শান্তির কথা বলা আছে।

‘তারপরেও কিছু লোক ধর্মীয় উন্মাদনায় মানুষের প্রতি আঘাত করছে, মানুষের জীবনকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে। এটা মানবজাতির জন্য বেদনাদায়ক ও কষ্টকর। জায়ান তো ছোট্ট বাচ্চা, মাত্র ৮ বছর বয়স। আজ তার দাফন হলো তার বাবাকে জানতে দেওয়া হয়নি যে জায়ান মারা গেছে। জায়ানের বাবা বারবার খুঁজছে। দেশবাসীর কাছে আহ্বান এই সন্ত্রাসের ঘৃণ্য কাজে মানুষ যেন জড়িত না হয়।

২৪/০৪/১৯/সত্যের সৈনিক/জহিরুল বিদ্যুৎ

Leave A Reply

Your email address will not be published.