অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

নগরীকে জঙ্গি ও অপরাধমুক্ত রাখতে নাগরিক সপ্তাহ পালন করবে ডিএমপি

সত্যের সৈনিক অনলাইন: মঙ্গলবার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মে মাসের অপরাধবিষয়ক সভায় ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, নগরীকে জঙ্গিবাদ ও অপরাধমুক্ত রাখতে নাগরিক সপ্তাহ পালন করতে যাচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। তবে এখনও এর দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। তবে চলতি মাসের শেষের দিকে অথবা আগামী মাসের প্রথম দিকে নাগরিক সপ্তাহের উদ্বোধন হতে পারে। নাগরিক সপ্তাহ শুরুর আগে সংবাদ সম্মেলন করে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে ২৯ এপ্রিল থেকে ৪ মে পর্যন্ত জঙ্গিবিরোধী গণসংযোগ সপ্তাহ পালন করেছিল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। অনেকটা সেই আদলেই নাগরিক সপ্তাহের কার্যক্রম ঠিক করা হবে। তবে শুধু জঙ্গিবাদই নয়, নগরীকে শতভাগ অপরাধমুক্ত রাখতে পুলিশ-জনগণের সেতুবন্ধ আরও দৃঢ় করার উদ্যোগ নেয়া হবে নাগরিক সপ্তাহের কর্মসূচিতে। ডিএমপির ৫০টি থানার বিভিন্ন এলাকায় উঠান, পাড়া-মহল্লা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অপরাধ ও জঙ্গিবিরোধী সচেতনতা সৃষ্টিতে বৈঠক করা হবে। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদক নির্মূলে পুলিশের পদক্ষেপ ও জনগণের করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ দেয়া হবে।

নগরীকে অপরাধমুক্ত রাখতে জনগণের কাছেও পরামর্শ চাওয়া হবে। এছাড়া ভাড়াটিয়া ফরম নিবন্ধন কার্যক্রম শতভাগ নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেয়া হবে। অপরাধ সভায় উপস্থিত একাধিক পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, ঈদের আগে জঙ্গিগোষ্ঠীর নাশকতার আশঙ্কা থাকলেও পুলিশি তৎপরতা ও সতর্কতার কারণে রোজা ও ঈদে উল্লেখযোগ্য কোনো অপরাধ সংঘটিত হয়নি। এজন্য সন্তোষ প্রকাশ করে ডিএমপি কমিশনার ৫০ থানার পুলিশ ও পুলিশ কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।পাশাপাশি জঙ্গিবাদ সম্পর্কে সব সময় সতর্ক থাকারও নির্দেশ দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার। এছাড়া ঢাকা মহানগরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও জননিরাপত্তা বিধানসহ ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ডিএমপির বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ সদস্যকে নগদ অর্থ দিয়ে পুরস্কৃত করেছেন ডিএমপি কমিশনার। অপরাধ সভায় মে মাসে ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের হাতে নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেন কমিশনার।

১২ মে/সত্যের সৈনিক/এমএএআর

Leave A Reply

Your email address will not be published.