অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

“ঘুমাতে দাও”- রিটন মোস্তফা

 

হে উদাস,শান্ত,ক্লান্ত,নীরব,হতভম্ব এ সময়
পৌছে দেও আমাকে সমস্ত জনতার কোলাহলে।

আমি চিৎকারে চৌচির করবো সব,সব কিছুই
জেগে দেব ঘুমন্ত পরিস্থিতির নিশ্চুপ আতঙ্কের মুখ।

বলাব কথা,যা কিছু থেমে অপশক্তির অবৈধ দাপটে
যা কিছু নীরব ও বধির করেছে দুঃশাসনের সে থাবা।

ছিনিয়ে নিয়েছে চাওয়া পাওয়া,ইচ্ছা ও স্বাধীনতা
অশান্ত চিৎকারে জাগিয়ে দেব চুপ সমগ্র চেতনা।

পথে ও প্রন্তরে রক্তের গঙ্গা বয়ে যায় প্রতিটি দিন
থেমে নেই কুমারী মেয়ের সম্ভ্রম নিয়ে হলিখেলা।

প্রতিবাদীর কন্ঠে ঝুলন্ত শক্ত লোহার শিকলে
লটকে আছে অব্যক্ত প্রতিবাদী শব্দ ক্ষোভের কাণ্ণা।

আমি এসবে হতভম্ব নই,নই ভিত একদম একটুও
আতঙ্কিত নই বুটের খুচে ফেলা কোনরকম নির্যাতনে।

আমি চিৎকার করেই বলবো,থামাও এসব,থামাও
বন্ধ করো নোংরামী,গুম ও হত্যা,পথে ঘাটে অন্ধকারে।

থেমে যাও,আমার শব্দ ছুটছে কানে থেকে কানে
সংঘবদ্ধ হচ্ছে নির্যাতিত,লাঞ্ছিতরা,ইজ্জত হারা মেয়ে।

কলম যখনই শব্দ উদ্গীরণ করবে,তুমি জেনে নাও
তুমি শক্তি হরাবে,মরবে তুমি সমগ্র বিবেকের জাগরণে।

সুতরাং সাবধান।
খুব সংযত হয়ে যাও।
নিশ্চয়তা দাও মুক্ত শব্দের।
শান্তিতে ঘুমাতে দাও আমাকে।

১১/০৭/১৯/সত্যের সৈনিক/জহিরুল বিদ্যুৎ

Leave A Reply

Your email address will not be published.