অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

পৌরুষ প্রান্তিক চাষী – মুসাফির মজনু

মধুমাসে বধু বেশে এনেছি কর্ষণে
মায়ের জঠর অতি উর্বর ভূমি;
ফসলের সুখে হরষের বুকে
ফুল বসন্তে প্রান্তিক চাষী আমি।

নব পুষ্পক আবেশে যৌবন জৌলুসে
বপন করেছি জোয়ারের জলে;
দশ মাসি বোরো-আমন ফসলের বীজ
মনে রংধনু রঙে কামনার ছলে।

আমি সিক্ত করেছি চৌচির উষ্ণ মাঠ
সেচ কল্লোলে পরম আনন্দে;
তুমি যতনে পুষে বীজ থেকে অঙ্কুর
ভ্রূণ থেকে ফসলে দিলে চিত্ত ছন্দে।

দিনে দিনে বাড়ে বোঝা ফুল-ফলে
কভু আসে ঝড় মহা প্লাবনে;
তুমি ফসলের জমি হয়ে নিত্য সয়ে
বিষাক্ত হয়েছো কীট দংশনে।

ধৈর্য্য-সহ্য কষ্টে রোগ ব্যাধি নিয়ে
স্নেহ বিলায়ে বাড়ন্ত শিশুর মাতৃকোষে;
নিঃস্বার্থ দানে গড়েছো মমতার উদ্যান
আমি থাকি হরষে ফসলের অভিলাষে!

কাঁপে জমি কাঁদে বুক প্রসব বেদনায়
তবু থাকো হেসে স্বপ্ন দেশে;
প্রান্তিক ফসল তুলি নব নবান্নে
উৎসবে মাতি মনের হরষে।

ভুলেও স্মরি না কভু ব্যথা ভরা দান
যে গিয়েছে সয়ে ফসলের বোঝা বয়ে;
সময়ান্তে গোলা ভরি প্রান্তিক চাষী
সুখ সৌরভে গৌরব উষ্ণ হদয়ে।

১১/৬/২০১৯/ সত্যের সৈনিক/ শামীমা নাসরীন

Leave A Reply

Your email address will not be published.