অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

” বৃষ্টি”- তোফায়েল আহমেদ

বৃষ্টি কন্যারা অঝোর ধারায় ভেজায় তনু,
শিতল করে ঘর্মরাক্তের অঙ্গ অনু।

আষাঢ়ের ধ্বনিতে জীবনের নাড়ায় মন,
নিভৃতের ডালে বসে ডেকে যায় সুজন।

ভাপসা গরমের গায়ে শিতলে ভেজা বৃষ্টি,
ক্লান্তি তাড়ায় জগতের সব সৃষ্টি।

থেমে থেমে আরেবারে তোমার আগমন,
বৃষ্টি তোমাকে গরম হারাতে নিমন্ত্রণ।

আয় বৃষ্টি অবনি থেকে ঝরণার মত সেজে,
টিনের চালে যেন তোমার সুর বাজে।

জানালার ফাঁকে দাঁড়িয়ে তোমায় দেখে,
আকাশ থেকে তোমার বিচরণ শেখে।

বর্ষার জলে তুমি কন্যার ঝুমকা বানাও,
তপ্ত মৃত্রিকার তুমি পিপাসা মিটাও।

জীবের পিয়াস পিয়াসে তুমি অবসাদ দাও,
সৃষ্টির তপ্ততায় তুমি নিমন্ত্রণ নাও।

বন্যার মিতা তুমি জনদুর্ভোগে মিলাও হাত
কত দিবা রাত তোমার বিচরণ অচেনা প্রভাত।

তুমি প্রেম করো পাহাড়ের সাথে বিজলী এসে,
তোমায় ছিনতাই করে নেয় গর্জিত ত্রাসে।

ফুলের পাঁপড়িতে বসলে তোমায় পবন নাড়ে,
অনুভূতি বহে বেড়ায় সবুজে আরে বারে।

পবিত্র বৃষ্টি, তুমি ভবের ফসলের জুড়াও প্রাণ,
আহারে অন্ন বাড়াও অপরুপ সৃষ্টির পরন্ত গান।

সাগর থেকে তোমার উৎস চলন গগনে ঘুরো,
মেঘ শাড়িতে সেজে চলন বিবাদে বৃষ্টি হয়ে ঝরো।

১৪/০৭/১৯/সত্যের সৈনিক/জহিরুল বিদ্যুৎ

Leave A Reply

Your email address will not be published.