অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

প্রবল বর্ষণে পাহাড়ে শঙ্কা -নিরাপত্তায় মাইকিং

মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ, বান্দরবান ঃ

ঘূর্ণিঝড় তিতলির প্রভাবে পাহাড়ে বৃষ্টি যেন থামছেই না। বিরূপ আবহাওয়া ও টানা বর্ষণের ফলে দেখা দিয়েছে পাহাড় ধসের আশংকা। এদিকে টানা বৃষ্টি দেখে সবাইকে সতর্ক ও নিরাপদে থাকতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গত কয়েকদিন যাবৎ একাধিকবার মাইকিং করা হয়েছে।

গত সোমবার থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিপাত এখনো থামছেনা। আবহাওয়ার সংবাদ মতে আরো কয়েকদিন থাকবে এই বর্ষণ। কখনো হালকা, কখনো মাঝারি, আবার কখনো ভারি বর্ষণ হচ্ছে পাহাড়ে। এ অবস্থায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে লোকজনকে এখনই নিরাপদে সরে যেতে বার বার তাগিদ দিচ্ছে লামা উপজেলা প্রশাসন।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, সারা দিন গুঁটি গুঁটি বৃষ্টি পাহাড়ের জন্য তেমন ভালো লক্ষণ নয়। তাতেই পাহাড় ধসের শঙ্কা সবচেয়ে বেশী। পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারীদের নিরাপদ দূরত্বে সরে যেতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এদিকে দুর্যোগ মোকাবেলায় ও সার্বিক তদারকির জন্য উপজেলা প্রশাসনের হতে কন্ট্রোলরুম খোলা হয়েছে। জরুরী প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট সকলকে লামা উপজেলা প্রশাসনের কন্ট্রোল রুমের নাম্বার সমূহে যোগাযোগ করার অনুরোধ করা হয়েছে। ইউএনও
লামা-০১৫৫০-০০৭১৮০।
পিআইও-লামা,- ০১৮৪৫-৭২৯৭২১।
পিআইও সহকারী- ০১৭১৭৭-১৪৭৩৬।
আইসিটি টেকনিশিয়ান-০১৫৫৩২৬২৪৭৮/ ০১৮৪২-০২১০৬৬।

লামা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার মজনুর রহমান বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় বেশ কয়েকবার আমরা প্রস্তুতি সভা করেছি। এবিষয়ে সকল ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার ও জনপ্রতিনিধিদের অবহিত করা হয়েছে। যে কোন দূর্ঘটনা ঘটার সাথে সাথে আমাদের অবহিত করলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এব্যপারে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি বলেন, পাহাড় ধসে একটি প্রাণহানির ঘটনা ঘটতে দেয়া যাবে না। উপজেলা প্রশাসন এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। বিশেষ করে ঝুকিপূর্ণ এলাকাগুলো আগে থেকে চিহ্নিত করা ছিল। সেখানে অবস্থানরত মানুষগুলোকে আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এলাকায় এলাকায় মাইকিং করে নিরাপদ স্থানে সরে যেতে বার বার বলা হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনের এ আদেশ অমান্য করে যারা বৃষ্টির মধ্যে পাহাড়ের নিচে বসবাস করবে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, উপজেলা শহরে প্রাণকেন্দ্রে ৭টি স্কুল ও মাদ্রাসায় আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। যারা আশ্রয় কেন্দ্র আশ্রয় নিবে তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি সবাইকে দুর্যোগ মোকাবেলায় এগিয়ে আসার অনুরোধ করেন।

১২ অক্টোবর ২০১৮,সত্যের সৈনিক/ম.ম

Leave A Reply

Your email address will not be published.