অনলাইন বাংলা সংবাদ পত্র

স্ত্রীর শরীর ঝলসে দিলো পাষণ্ড স্বামী জুয়ার টাকা না পেয়ে

সত্যের সৈনিক অনলাইন: জুয়ার খেলার টাকা না পেয়ে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়নের আপিয়া বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূকে মারধরের পর গরম পানি শরীরে ঢেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। বর্তমানে ওই নারীকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ জুন) হাতীবান্ধা উপজেলার পশ্চিম সারডুবি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আপিয়ার স্বামী মাসুদ মিয়া বিয়ের পর থেকেই স্ত্রীকে নানা ভাবে নির্যাতন করে আসছিল। আপিয়া পশ্চিম সারডুবি গ্রামের আব্দুর রহমানের মেয়ে। তবে এ বিষয়ে কথা বলতে মাসুদ মিয়াকে ফোন করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। মাসুদ পশ্চিম সারডুবি গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে।

আপিয়া বেগম বলেন, ‘সকালে আমি সেমাই রান্না করছিলাম। এ সময় বাচ্চারা দুষ্টামি করলে তাদের একটু বকাককি করি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার স্বামী মারধর করে। এক পর্যায়ে আমার শরীরে গরম পানি ঢেলে দেয়।

তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, ‘টাকার জন্য সব সময় আমাকে মারধর করা হত। আমি ইটভাটায় কাজ করে টাকা আয় করে তাকে দেই। আর সেই টাকা দিয়ে সে জুয়া খেলে। গত সোমবার আমাকে বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলে। কিন্তু টাকা আনতে রাজি না হওয়ায় আমার উপর রেগে যান তিনি।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ১৩ বছর আগে ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের বিনিময়ে মাসুদের সঙ্গে আপিয়ার বিয়ে হয়। বর্তমান তাদের সংসারে তিনটি সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে মাসুদ আরও টাকার জন্য আপিয়াকে নির্যাতন করে আসছিল। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য শালিসও হয়েছে।

বড়খাতা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা কামাল সোহেল বলেন, মাসুদ-আপিয়ার বিষয় নিয়ে একাধিকবার বিচার করা হয়েছে। তারপরও আপিয়ার প্রতি নির্যাতন থেমে থাকেনি।

হাতীবান্ধা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার নাঈম হাসান নয়ন বলেন, গরম পানির কারণে আপিয়ার শরীরের কিছু অংশ ঝলসে গেছে।

এ ব্যাপারে হাতীবান্ধা থানা অফিসার ইনচার্জ ওমর ফারুক জানান, ঘটনা শুনে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

১২ জুন ২০১৯ / সত্যের সৈনিক / এমএসআইএস

Leave A Reply

Your email address will not be published.